Home / ট্রানজিস্টর এমপ্লিফায়ার / ট্রানজিস্টর এমপ্লিফায়ার

ট্রানজিস্টর এমপ্লিফায়ার

ট্রানজিস্টর এমপ্লিফায়ারঃ

বর্তমানে এমপ্লিফায়ার বানাতে গেলেই আমাদের সামনে চলে আসে ট্রানজিস্টর সিস্টেম সাউন্ড। আগের দিনে এমপ্লিফায়ার এর জন্য বেশি ব্যবহার হত এস টি কে  আইসি. stk4141,stk4191,4508,4440, বা অন্য কিছু। কিন্তু এখন আমরা আর এইসব আই সি ব্যবহার করতে চাই না। এখন আমাদের জনপ্রিয় হল ৫২০০ আর ১৯৪৩ ট্রানজিস্টর। যা কি না বিভিন্ন দামের আর বিভিন্ন কোয়ালিটিতে পাওয়া যায়। শুধু তাই না আমাদের মনের মত করে আমরা এমপ্লিফায়ার এর ওয়াট করতে পারি। এখানে ২ ট্রানজিস্টর থেকে শুরু করে আমরা ৪,৬,৮,১০,১২,১৪,১৬,১৮,২০,২২,২৪, যেমন খুশি তেমন  ব্যবহার করতে পারি। বর্তমানে আমাদের চাহিদা মত আমরা এমপ্লিফায়ার বানাতে পারি। বাজারে এই সব সার্কিট গুলা রেডিমেট পাওয়া যায়। তবে ট্রানজিস্টর লাগানো থাকে না। কারন বিভিন্ন রকমের  ট্রানজিস্টর পাওয়া যায় বাজারে। আমরা যে যার মত করে লাগাই। আর ২ থেকে ২৪  ট্রানজিস্টর এর বোর্ড বাজারে পাওয়া যায়। আমরা ইচ্ছা মত কিনতে পারি বা বানাতেও পারি। এই বোর্ড এর ডায়াগ্রাম খুবই সহজ। আমার এই সাইটে বিভিন্ন রকম ডায়াগ্রাম আপনারা পাবেন। নিজেরা চাইলে বানাতেও পারেন এখান থেকে ডায়াগ্রাম নিয়ে। 

ট্রানজিস্টর এমপ্লিফায়ার

এই সার্কিট গুলা সাধারণত ৩৫-০-৩৫ ভোল্টে চলে। তবে বেশি ট্রানজিস্টর ব্যাবহার এর ক্ষেত্রে ভোল্ট বাড়াতে হয়। যত  ভোল্ট আর অ্যাম্পিয়ার বাড়বে তত ওয়াট ও বাড়বে। আমাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে একটি এমপ্লিফায়ার এর সব থেকে জরুরি হল ভাল একটি ট্রান্সফরমার। অনেকেই আমরা মনে করি যে ভাল সার্কিট আর ভাল আই সি বা ভালমানের ট্রানজিস্টর হলেই সাউন্ড ভাল হবে। আসলে এটা ঠিক না। আমরা জানি যে ভোল্ট X অ্যাম্পিয়ার =ওয়াট। যেমন ৩৫ ভোল্ট ৫অ্যাম্পিয়ার, সুতরাং ৩৫X৫=১৭৫ ওয়াট। আর এই ভোল্ট কে স্পীকারে সাউন্ড আকারে এই আই সি বা ট্রানজিস্টর পৌঁছায় দেয়। এই করনেই সব থেকেই গুরুত্ব দিতে হবে ভাল একটি ভোল্টের। 

চলুন দেখে নেই কিভাবে এই এমপ্লিফায়ার এর বোর্ড বানাতে হয়?

আপনারা যদি আরও জানতে চান ইউটিউব  electrohelpcare

আমাদের ফেসবুক পেজ Electronics help care

 

About electrohelpcare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *